মন ভেঙেছে মিঠাইয়ের তাই সারাদিনে একটাও শুভেচ্ছা জানাতে পারলেন না আদৃত রয়কে! প্রোফাইল জুড়ে শুধু মন ভাঙার হাহাকার,কেক খাওয়ানোর সময়ও মুখ ভার, মন খারাপ মিঠাই ভক্তদের – Tolly Tales
Connect with us

Bangla Serial

মন ভেঙেছে মিঠাইয়ের তাই সারাদিনে একটাও শুভেচ্ছা জানাতে পারলেন না আদৃত রয়কে! প্রোফাইল জুড়ে শুধু মন ভাঙার হাহাকার,কেক খাওয়ানোর সময়ও মুখ ভার, মন খারাপ মিঠাই ভক্তদের

Published

on

আজকে মিঠাই ভক্তরা ঠিক কী করবেন বুঝতে পারছে না। আজ তাদের উচ্ছে বাবুর জন্মদিন। মানে আদৃত রয়ের আজকে সত্যিই জন্মদিন।সকাল থেকেই ভারত লক্ষ্মী স্টুডিও তে প্রচুর ভিড় জমেছে আদৃতের বার্থডে সেলিব্রেট করার জন্য।তার কারণ গতকাল আদৃত নিজেই জানিয়েছিলেন যে আজকে বার্থডে সেলিব্রেট করার জন্য ভারত লক্ষ্মী স্টুডিও তার ভক্তদের জন্য খোলা রয়েছে।

কিন্তু একটা জিনিস সকলের ভীষণ চোখে লাগছে সেটা হলেও অন্য সকলের জন্মদিনে মিঠাই অর্থাৎ সৌমি রাত বারোটা বাজতে না বাজতেই পোস্ট দেয় কিন্তু রাত আটটা বেজে গেল সৌমি আদৃতের উদ্দেশ্যে কোন একটা পোস্ট করেনি। বহুদিন হয়ে গেল আমরা তাদের দুজনের একসঙ্গে কোন ইন্টারভিউ দেখিনি। অন্তত রিকি দ্য রকস্টার সেজে আসার পর দুজনের একসঙ্গে একটা ছাড়া আর ইন্টারভিউ আমাদের চোখে পড়েনি তাও শুরুর দিকে। মিঠাই আর আদৃত ভক্তরা এই নিয়ে দুই ভাগে ভাগ হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝগড়া শুরু করেছেন।

আসল সমস্যাটা শুরু হয়েছিল সৃজলা এবং রোহন ভট্টাচার্যের ব্রেকআপ নিয়ে। তখন শন ব্যানার্জির নাম জড়িয়েছিল। সেই সময় গোটা ঘটনা ধামাচাপা দিতে কেউ রটিয়ে দেয় যে আদৃত আর কৌশাম্বী প্রেম করছে।তারপরে আদৃত নিজের সঙ্গে কৌশাম্বীর একটা ফটো দিয়ে জানান যে কৌশাম্বী শুধুই তার বেস্ট ফ্রেন্ড সেখানে মিঠাই এর বেস্ট ফ্রেন্ড সায়ক চক্রবর্তী একটা ব্যঙ্গাত্মক কমেন্ট করেন।অনেকের কাছে সেটা সরল লেগেছিল তবে কিছু জন ভেবেছিলেন যে মিঠাই নিজের বেস্ট ফ্রেন্ডকে দিয়ে আদৃতকে অপমান করাচ্ছে।

তবে দুজনের মধ্যে কিছুতো একটা হয়েছে এটা একদম 100 ভাগ নিশ্চিত।তার কারণ আমি চাই জানে যে তিনি কোন পোস্ট না দিলে বিতর্ক হবে আর যেচে কেউ বিতর্কে থাকতে চায় না এখনকার দিনে।তার উপর আমরা যদি মিঠাইয়ের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে যাই তাহলে স্টোরিতে দেখব কাল রাত বারোটার পরে মিঠাই তিনটে স্টোরি পোস্ট করেছে যেগুলো কোনো ব্রেকআপ হয়ে যাওয়া মানুষ পোস্ট করে। তাই অনেকেই অদ্ভুত কল্পনা করতে শুরু করেছেন যে, মিঠাই বোধহয় আদৃতকে পছন্দ করেন ,সেটা মিঠাই আদৃতকে বলেছিলেন কিন্তু আদৃত নাকচ করে দিয়েছে তাই মিঠাইয়ের রাগ হয়েছে তাই সে উইশ জানায়নি।

অন্যদিকে কিছুক্ষণ আগে একটা ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে মিঠাই পরিবারের সকলে মিলে আদৃতের জন্মদিনে কেক কাটছে সেখানে মিঠাইও আছে কিন্তু মিঠাইয়ের মুখ চোখ দেখে মনে হচ্ছে যে খুব একটা তার ভালো লাগছে না ব্যাপারটা। কেমন যেন মনে হচ্ছে জোর করে রয়েছে সে। সব মিলিয়ে কেস বড় জটিল।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Trending