Connect with us

Bangla Serial

‘মিঠাইয়ের জন্মদিনে তো এত লোক গেল না, আদৃতের জন্মদিনে এত ভিড় কেন হল?’, ভারত লক্ষ্মী স্টুডিওতে আদৃত ভক্তদের ভিড় দেখে রাগ হয়েছে সৌমিতৃষা ভক্তদের!কান্ড দেখে মজা নিচ্ছে জলসা ভক্তরা

Published

on

নিজেদের প্রিয় তারকার সিরিয়াল দেখতে ভালোবাসেন না এরকম খুব কম মানুষ হয়। তবে জি বাংলার সবচেয়ে জনপ্রিয় সিরিয়াল মিঠাইতে যা দেখা গেল তা দেখে মন খারাপ মিঠাইয়ের নিরপেক্ষ ভক্তদের। আজ আজ আদৃত রয়ের জন্মদিনে এমন কিছু ঘটনা ঘটলো যেটা কাম্য ছিল না।

গতকাল আদৃত নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়ে দিয়েছিলেন যে আজকে সারাদিন ভারত লক্ষ্মী স্টুডিওর দরজা খোলা থাকবে।তাই যারা তাকে শুভেচ্ছা জানাতে চান তার জন্মদিনের জন্য তারা সকলে আসতে পারেন। তাই গতকাল থেকেই আশা করা গিয়েছিল যে আজকে ভারত লক্ষ্মী স্টুডিওতে কী ভিড় হতে পারে। সেইমতো যত বেলা বেড়েছে ততো স্টুডিওতে ভক্তদের আনাগোনা বেড়েছে। প্রায় 90 শতাংশই মহিলা ভক্ত।নিজেদের প্রিয় সিডি থেকে একবার কাছ থেকে দেখার সুযোগ তাও জন্মদিনের দিন, এটা কেউ ছাড়ে নাকি?

কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় কিছু জিনিস নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এখনো পর্যন্ত কোনো উইশ করেননি সৌমিতৃষা। এটা সকলেরই চোখে পড়েছে এবং ব্যাপারটা ভীষণ দৃষ্টিকটু লাগছে অনেকের কাছে। বিশেষ করে জলসা ভক্তরা তো এটা নিয়ে ট্রোলিং শুরু করে দিয়েছে। অন্য কোথাও গিয়ে দুজনের বন্ধুত্ব ছেদ পড়েছে এরকম জল্পনাও উঠছে।

এর মাঝে এবার কিছু মিঠাই ভক্ত এমন কিছু পোস্ট করলে সোশ্যাল মিডিয়ায় যেটা আদৃত ভক্তদের কাছে ভীষণ শকিং। ফেব্রুয়ারি মাসে ছিল মিঠাই এর জন্মদিন কিন্তু সেখানে ভারত লক্ষ্মী স্টুডিও তে এত ভিড় হয়নি।কিন্তু আজ আজ আদৃতের জন্মদিনে প্রচুর ভিড় হয়েছে তাই কিছু মিঠাই ভক্তের খুব রাগ হয়েছে। তাদের বক্তব্য, ‘কই মিঠাইয়ের জন্মদিনে তো এতো ভিড় দেখলাম না, তাহলে কি আদৃতই সিরিয়ালে সব? এত খেটেখুটে মিঠাইয়ের প্রাপ্তি কি এটাই? আপনাদের কাছে কি সৌমিতৃষার কোনো গুরুত্ব নেই?’। এইরকম কথা শুনে যারা মিঠাইয়ের নিরপেক্ষ ভক্ত তারা পর্যন্ত রেগে গেছে।

যারা আদৃতের ভক্ত তারা তো প্রতিবাদ করেছে তবে অনেকেই বলছে যে আদৃত সিনেমা, মিউজিক ভিডিও করে তাই ওর মহিলা ফ্যান ফলোয়িং আগে থেকেই অনেক বেশি। এখানে শুধু সিদ্ধার্থের ভক্তরা যায়নি।আর সব থেকে বড় কথা আর আদৃত নিজে কালকে বলে দিয়েছিল যে আজকে ভারত লক্ষ্মী স্টুডিও’র গেট খোলা থাকবে। সেখানে মিঠাই এরকম কিছুই বলেনি।ফলে যারা যেদিন তারা নিজেরাও জানতেন না যে তারা ঢুকতে পারবেন কিনা।

কিন্তু এইরকম ভাবে দুজনের মধ্যে ঝামেলা বাঁধানোর কোন মানেই। এতে করে মন ফাগুনের ভক্তরা সুযোগ পেয়ে যাচ্ছে মিঠাইকে কথা শোনানোর।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Trending