Connect with us

Bollywood

Actress Pregnancy: রবিবারেই সন্তান প্রসব? সকাল সকাল হাসপাতালে ছুটলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী

Published

on

রবিবার একেবারে সকাল সকাল হাসপাতালে কাপুর পরিবারের বৌমাকে নিয়ে গোটা পরিবার ছুটলো। কারণ তিনি যে সন্তান সম্ভবা। যে কোনো মুহূর্তে সন্তান ভূমিষ্ঠ হতে পারে।

বুঝতে পারলেন তো কার কথা বলছি আমরা? হ্যাঁ, ব্রহ্মাস্ত্র নায়িকা এবং রণবীর কাপুরের স্ত্রী আলিয়া ভাট। জানা গেছে রবিবার একেবারে সকালে এই নায়িকাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সঙ্গে রয়েছে গোটা পরিবার। আসলে চিকিৎসকদের অনুমান এই দিনেই সন্তানের জন্ম দিতে পারেন নায়িকা।

২০২২ সালের নভেম্বর মাস নায়িকার জীবনে বিশেষ পরিবর্তন আনতে চলেছে সেটা আগে থেকেই জানা গেছিল। ২৮ নভেম্বর জন্মদিনের আগেই হয়তো প্রথম সন্তানের জন্ম দিতে চলেছেন নায়িকা। গোটা পরিবারে এই নিয়ে আলাদা উন্মাদনা চলছে। গোটা পরিবার তাকিয়ে রয়েছে যাতে নায়িকা নিজে সুস্থ থাকেন এবং সুস্থ সন্তানের জন্ম দেন। সেই সঙ্গে তারা অপেক্ষা করছে সুখবর পাওয়ার।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Alia Bhatt 🤍☀️ (@aliaabhatt)

এরই সঙ্গে এতদিনের যুদ্ধকালীন তৎপরতা শেষ হয়ে যেতে চলেছে কাপুর পরিবার এবং ভাট পরিবারের। রবিবার অর্থাৎ আজ ৬ নভেম্বর পৃথিবীর আলো দেখতে পারে আলিয়া এবং রণবীরের প্রথম সন্তান। এখন ডাক্তার এবং পরিবারের নজর একটাই আলিয়া যাতে সুস্থ থাকেন সেটা।

এতদিন ধরে টানা মানসিক প্রস্তুতি নিয়েছেন এই দিনটার জন্য নায়িকা। গর্ভাবস্থায় তার জেল্লা যেন ঠিকড়ে বেড়চ্ছিল। এমনকি উৎসাহিত হবু বাবা এবং হবু মাসি অর্থাৎ আলিয়ার দিদি শাহীন। মাসি হওয়ার আনন্দে আর অপেক্ষা করতে পারছেন না তিনিও। এবছর বোনের ৩০ তম জন্মদিন ধুমধুম করে এবং অন্যভাবে পালন করার প্ল্যান রয়েছে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Alia Bhatt 🤍☀️ (@aliaabhatt)

মুম্বাইয়ের এইচ এন্ড রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন হাসপাতালে সমস্ত জোগাড়যন্ত্র শুরু হয়ে গেছে। সেখানে যে কোনো মুহূর্তে সুখবর আসতে পারে। এতদিন ধরে নায়িকা নিজের ঠিকঠাক যত্ন নিয়েছেন, ঠিকঠাক বিশ্রাম নিয়েছেন। তার পাশাপাশি প্রতিদিন সকালে নিয়মিত যোগব্যায়াম এবং শরীরচর্চার মধ্যে থেকেছেন। উদ্দেশ্য একটাই প্রাকৃতিক নিয়মে সন্তান প্রসব করতে চান তিনি এবং সেই পদ্ধতি যেন মসৃণভাবে হয়। অনেকেই মনে করে সিজারিয়ান ডেলিভারি হলে শরীরের উপর ক্ষতিকারক প্রভাব ফেলে। আলিয়া ব্যক্তিগতভাবে সেটা চান না।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by ETimes (@etimes)

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Trending